স্বাগতম

আসুন আমাদের জগতে ...

17th PoSt , merry christmas














13 comments:

  1. taahole to Jibanananda-r pore bangla kobita-e aar kichhu thaaklo na bhai ! Arka-r kobitata daarun . kintu ekhaane o upomaa byabohaar korechhe bole mone hoe na . byabohaar korechhe upoma-r irony . 2009 saaler december maas-e irony oboshyoi kobita hote paare . upoma noe .

    ReplyDelete
  2. achchha what if i refuse to be so stringent?
    sobtukui toh prokash...
    jodi irony dhoreo nei, tobu er modhye jhanjher byaghat toh pelum na...ei nostalgic tone irony'r ki vishon silpito bohiprokash je anumpam da, mairi bolchhi, mon prosonno hoye gelo...
    bhaskarjyoti'r kobita duto dekhe (porhe)mone pore gelo concrete poetry'r kotha...oi je visual appeal..jemon e e cummins'e matoyara hoye jaai...shiuli'r ei jhore porar theke aar beshi jhore porha dekhi ni...
    achchha anupam da, sankho ghosh'o toh mone hoy ei typographical binyas byabohar korechhen 'rangamamimar grihotyag' e , tai na? odvut ek kunrhe ghorher shape royechhe taate..

    somnath ghoshal valo laglo...jemon valo laage or praay sob kobita'i...asole jekono mugdho drishyo kei o fatakse attmogoto kore ney...taar porer dhaape avishek muhurto, gorhe cholechhe muhurto gulo...madol er porhe etao ki sanghatik ekta lekha...ki teebrotoro!

    nobyendu'r aager lekhata aaro marattmok legechhilo....
    aar achhe

    zia
    .
    .
    .
    apatoto aatke achhi or kobitay...

    ReplyDelete
  3. amar post gulo ei odbhut naame keno aschhe bujhchhi na...naki thik hoye gelo?

    ReplyDelete
  4. thik hoe gelo Aritra . khub vaalo comment korchho . thanks .

    ReplyDelete
  5. শীতকাল ভিড়ে নেমেছে উৎযব
    এখানে পাখিদের সার্কাস নিয়ে গেছে
    মুখে যন্ত্রণা নিয়ে ঘুম ঘোর হয়ে
    জুতো বেঁধেছে পেঁপে গাছ

    ডিম ফাটার শব্দ না শুনে ক্লান্ত হয়েছো নির্জনতা ।

    ReplyDelete
    Replies
    1. দারুন লাগলো !!!!

      Delete
  6. maanonio Shankha Ghosh-er RAANGAAMAAMIMAAR GRIHOTYAG bikhyato kobita . concrete kobita hisebe poraar katha kokhono vaabini . Aritra ekta natun drstikon dilo . knureghorer aadol hoeto sotyi-e aachhe lekhaatae . aaj aabar porlaam . setai mone holo .

    kobitata CHHORAANO PAALOK-ei ses hote paarto . 'keu jaane na ' bolaar dorkaar chhilo na mone hoe . '!' die ses koraar dorkaar to chhiloi na .

    keu je jaane naa , kobi-k setaa jaanalo k ?

    ReplyDelete
  7. SOUVIK BANDYOPADHYAYTuesday, December 29, 2009

    Anupam-er kobita-ta fantastic. shotti kawtha, vishon shotti...bivinno layer ache..khub valo..

    Joyshila-r kobitay experimentation ache..chesta-ta shobsomoy-i aynnyorokomvabe bolar thake, sheta koekta post-ei chokhe poRchhe...

    A Happy New Year in advance to all of you..Aamra jaara cigarette khai, taara abar raat 12tar porey protibarer moto cigarette chheRe debar chesta korbo..protibarer moto..:)

    ReplyDelete
  8. anupamda tomar kabitata keman ek mayabi sannaser mato gach haye utheche jekhane pakhider dime om ach janmer ritugune aro kabitara rat sesr sapna feri kare jache,,,,,,

    ReplyDelete
  9. গানের দেশে প্রাণের দেশে
    রিপন গুন

    আবার যদি ডাকো আমায় আসিব আমি ফিরে -
    সুখ দুঃখেরি ঢেউ খেলা এই গানের দেশে প্রাণের দেশে,
    বসবো আমি, নদীর তীরে ছড়িয়ে এলো চুলে
    নদীর বুকে ভাসবে তরী, গুনটেনে পাল তুলে ।
    এলো কেশে কূলবধু জল নিতে যায় ঘাটে -
    ডুবে যাব এসব দেখে শ্যামল শোভায় সাঁঝে,
    সবুজ বনে দুলবে ফুলে ফলে -
    প্রজাপতি পাখা মেলে উড়বে গগন তলে ।
    পানকৌড়ি আর সাদা বক উড়বে নদীর জলে
    দুচোখ ভরে আপন মনে দেখব বসে বসে,
    আমার দেশের সবুজ ঘাসে, ঝিলমিলিয়ে শিশির হাসে
    সরিষা ফুলের হলুদ মাঠে কিশোরিরা যায় ছুটে
    মৌ ছড়ানো গন্ধ মাখে মন ভুলানো আপন সখে,
    পাগল বেশে রাখাল ছেলে, বাজায় বীণে নদীর ধারে
    কুমারী মেয়ে নদীর পাড়ে, ওড়নাখানী যায় উড়িয়ে ।
    আমার দেশের বকুল শাখে, ফুটে কত শত ফুল
    আচঁল পাতিয়া কুরায় কুমারী, ছড়ায়ে দীঘল চুল
    আচঁল ভরিয়া আনিয়া সে ফুল, ঢালিয়া মাধুরী কতো
    সুর লহরী কণ্ঠে ছড়ায়ে গায় যে গান শত ।
    প্রিয় জনের গলায় পরাতে, নিশি জাগিয়া গাঁথে -
    দিতে না পারিলে সে মালা তারে বুকে বেদন জাগে,
    শস্য শ্যামল ফসলে ভরা, আমাদের এই বাংলা -"মা"
    তোমার রূপের নাইকো ঝুড়ি হয়না কোন তুলনা ।

    ReplyDelete
  10. আমার মা
    রিপন গুন

    পৃথিবীটা নিশ্চুপ, রাতটা নিঝুম সারা দেহে শিহরণ,
    চোখকে বলি ঘুমো বাবা রাত জাগিসনে অকারণ
    শোনেনা বারন টেনে তোলে কানে বাজে মায়ের ডাক,
    স্নেহের পরশে সিক্ত করে ঘুরে দেয় জীবনের বাঁক ।
    যেদিকে তাকাই অক্ষি পটে ভাসে নির্মল মুখ খানি
    কত জনই হতে চাহিল আপন, হইল সকলে শণি
    তোমার শুন্যতা পূরণ করিতে কত শুনাল মধুর কথা,
    কেউ খোঁজ রাখেনা যখন ভুল করে দেই ব্যথা ।

    ভালবেসেছিলাম যাদের আমি খবর নেয়না আর,
    নিষেধ হয়েছে,
    লাভ নেই মিশে, ছন্ন ছাড়া জীবন রয়েছে যার
    ক্লান্ত হয়েছি মলিন দেহে কেহ দেয়না চুম,
    সাত রাজার ঐ রাজ্য জয়ের গল্পে আসেনা ঘুম ।
    সকলেরই মান বজায় রেখে আমাকে দিয়েছে ঠেলে,
    মাগো! তখনই তুমি ঠাঁই দিয়েছ, ধরেছ নিজেকে মেলে
    আজি মনে পড়ে দিবা-নিশি কত বকুনি দিয়েছি তোমায়,
    ভাতের থালা ফেলেছি ছুড়ে কত চুল ছিরেছি হায় ।
    বাড়ী হতে বেরিয়ে পড়েছি চোখ যে দিকে যায়,
    পিছু ছাড়োনি, বলেছ খেয়ে যা শক্তি পাবিনা গায়
    পথে পথে ঘুরে নিরাশ হয়ে ফিরেছি সন্ধ্যা বেলা,
    এক মুঠো ভাত খাওনি তখনও পেটে সয়েছ জালা
    শিয়রে দারিয়ে প্রহর গুনেছ ঘুম ভাঙলেই খাবে
    খোকা আমার রাগ করিলে বেঁচে থেকে কি হবে ?
    মাগো! মনে পড়ে জল বসন্ত সেই রাতের কথা,
    ডাক্তারের বারণ, ছোয়াচে রোগ ঘুঁচানো যাবেনা ব্যথা
    কিচ্ছু মাননি সারা রাত জেগে নেড়ে দিয়েছ চুল,
    বলেছ, বাবা !
    ভাল হবে তুমি, অনেক বড় হয়ে রাখিবে মোদের কুল
    মাগো! আর ভাবতে পারছিনা চোখ বেয়ে জল পরে,
    দায়িত্ব পালন করিনি তোমার, তবুও খুঁজে ফের মোরে
    জানি। স্রষ্ঠার সেরা সৃষ্টি তুমি সব উর্ধে, তোমার মান,
    এমন মা বেঁচে আছে যার, তারাই সৌভাগ্যবান ।

    ReplyDelete